12 Apr 2014   01:21:02 AM   Saturday   BdST

সব মঞ্চে তিনিই সেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
ঢাকা, ১১ এপ্রিল : এক সময় ছিলেন তিনি মঞ্চ কাঁপানো অভিনেতা। যার অভিনয়ে চোখের পলক ফেলার সুযোগ পেতেন না দর্শক। যার নাটক দেখার জন্য সাধারণ মানুষ অপেক্ষায় থাকতেন। এই মানুষটি হলেন ফজলে এলাহী মকুট চৌধুরী।

যিনি এলাকায় মুকুট চৌধুরী হিসেবে বেশ পরিচিত । তার নাম বললে চিনবে না এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম। এই মানুষটি যেমন অভিনেতা হিসেবে বেশ সনামধন্য, তেমনি জনপ্রতিনিধি হিসেবেও ব্যাপক জনপ্রিয়।

তিনি হলেন ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ১২ নং সালন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলে এলাহী মকুট চৌধুরী।

একনজরে মুকুট চৌধুরী : ১৯৬২ সালে সদর উপজেলার সালন্দর চৌধুরী হাট এলাকায় জন্ম জনপ্রিয় এই মানুষটির। ছোটবেলা থেকেই অভিনয়ের সঙ্গে জড়িত তিনি। মাত্র ১৭ বছর বয়সেই এলাকার বিভিন্ন সেবামূলক কাজের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি। এ কারণে তখন থেকেই এলাকার মানুষ তার মধ্যে নেতৃত্বের গুণাবলী দেখতে পেতেন। ১৯৭৯ সালে তিনি সাফল্যের সঙ্গে এসএসসি এবং ১৯৮১ সালে তিনি এইচএসসি পাশ করেন। পরবর্তীতে তিনি স্নাতক পাশ করেন।

১৯৯২ সালে মাত্র ৩২ বছর বয়সে তিনি সালন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৯৭ সালে তিনি পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৯৫ সালে তিনি ঠাকুরগাঁও জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান হিসেবে স্বর্ণপদক অর্জন করেন।

এরপর ২০১১ সালে তিনি তৃতীয়বারের মতো বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। দীর্ঘদিন চেয়ারম্যান থাকাকালীন তিনি এলাকার ব্যাপক উন্নয়নসহ বিভিন্ন সবাজসেবামূলক কাজ করেন। বর্তমানে তিনি তার ইউনিয়নের সবচেয়ে জনপ্রিয় মানুষ।

তার এসব উন্নয়নমূলক কাজের স্বীকৃতি হিসেবে গত ২১ মার্চ রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমীর স্কাইমুন রেস্টুরেন্টে তাকে ‘জেনারেল ওসমানী স্বর্ণপদক’ দেওয়া হয়।

স্বাধীন বাংলা সংসদ (স্বাবাস) নামে একটি সেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান তাকে এ পদকে ভূষিত করেন। পদকটি তুলে দেন সাবেক প্রধান বিচারপতি মো. তাফাজ্জল হোসেন।

অপরদিকে, একই কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ১১ এপ্রিল শুক্রবার রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে আবারো তাকে ‘কাজী নজরুল ইসলাম’ স্বর্ণপদকে ভূ্ষিত করা হয়।

ধারা সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা নামে একটি সংগঠন এ অনুষ্ঠানের আয়োজনে করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে স্বর্ণপদক তুলে দেন বিচারপতি মকমুল হক।