22 Nov 2018   02:31:41 AM   Thursday   BdST

বাংলাদেশ প্রতিশোধ নিতে মরিয়া

চট্টগ্রাম থেকে :ইতিহাস বলছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে যে লজ্জা বাংলাদেশ একবার পেয়েছে তা আবার ফিরিয়েও দিয়েছে।


২০১১ বিশ্বকাপের কথাই ভাবুন। বিশ্বকাপের অন্যতম আয়োজক বাংলাদেশ। অথচ ঘরের মাঠে গেইল, স্যামিদের থেকে কি লজ্জাটাই না পেয়েছিল বাংলাদেশ। দিবারাত্রির ম্যাচে ১৮.৫ ওভারে বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় মাত্র ৫৮ রানে। দিনের আলো থাকা অবস্থায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ জেতে ৯ উইকেটে।

সাকিবের দলের এমন হার মানতে পারেনি সমর্থকরা। বাংলাদেশের টিম বাস মনে করে জুতা মেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ টিম বাসে। ওমন বিব্রতকর পরিস্থিতিতে এর আগে কখনো পরেনি বাংলাদেশ। তাইতো ওয়েস্ট ইন্ডিজকে লজ্জা দিতে উঠেপড়ে লাগে বাংলাদেশ।



সাত মাসের ব্যবধানে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে অলআউট করে ৬১ রানে। ওই সাকিবের হাত ধরেই আসে এমন সাফল্য। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে আরেকটি লজ্জা দেওয়ার অপেক্ষায় পুরো বাংলাদেশ।

চলতি বছরের মাঝামাঝি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নিজেদের সর্বনিম্ন ৪৩ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। চার মাসের ব্যবধানে ক্যারিবীয়ানরা এবার বাংলাদেশের মাটিতে। বদলা নিতে পারবে কী বাংলাদেশ?

অধিনায়ক সাকিবের লক্ষ্যও ওরকম কিছু,‘আমাদের যেহেতু র‌্যাঙ্কিংয়ের পজিশনটাও খুব কাছাকাছি, তাই স্বাভাবিকভাবে ওরা যেমন ওদের হোমে ভালো করতে পেরেছে। আমাদেরও লক্ষ্য থাকবে আমরা ওইরকমই ভালো করি এখানে।’



দ্বিতীয় মেয়াদে অধিনায়ক হিসেবে দেশের মাটিতে সাকিবের প্রথম ম্যাচ বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ম্যাচে ভালো করতে প্রথম ইনিংসে ভালো করতে মুখিয়ে সাকিব। বিশেষ করে ব্যাটসম্যানদের দিকে তাকিয়ে অধিনায়ক।

‘আমাদের চেষ্টা থাকবে ভালো ব্যাটিং করার। দলের স্কোর যেন ভালো অবস্থায় রাখতে পারি। হাইস্কোরিং ম্যাচ নাও হতে পারে। মোটামুটি উইকেটও হয় তাহলে তিন’শ প্লাস রান করতে পারলে খুবই ভালো। আর যদি আরও ভালো ব্যাটিং উইকেট হয় ৪০০-৫০০ যদি করা যায়,প্রথম ইনিংসে। এটা আমাদের জন্য সুবিধা হবে প্রথম ইনিংসে। সবাই চেষ্টা করবে বড় ইনিংস করার সেটা ব্যক্তিগত দিক থেকে হোক আর দলীয় দিক থেকে হোক।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের প্রস্তুতি সারতে চেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু প্রথম ম্যাচ হারের পর বড় ধাক্কা হজম করে টিম বাংলাদেশ। তাইতো ঢাকা টেস্ট ছিল নিজেদের বাঁচা-মরার লড়াই। ঢাকা টেস্ট জিতলেও সিরিজ ড্র হওয়ায় তৃপ্ত নয় টিম বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ তো বলেই দিয়েছিলেন, ট্রফি শেয়ার করতে ভালো লাগেনি।’



তবে দলের বর্তমান চিত্র ভিন্ন। সাকিব মনে করেন ব্যর্থতা ভুলে ঘুরে দাঁড়াবে দল,‘আমার ধারণা সবাই মানসিকভাবে ভালো অবস্থানেই আছে। দুই একজন হয়তো ওই ভাবে ভালো ব্যাটিং করতে পারেনি। অবশ্যই সবাই বেশ ভালো ভাবেই চেষ্টা করবে সামনের ম্যাচগুলোতে ভালোভাবে পুষিয়ে দিতে।’

প্রতিশোধের সিরিজ হলেও তিন বিভাগেই বেশ চ্যালেঞ্জ দেখছেন সাকিব,‘জিম্বাবুয়ের থেকে এই সিরিজে একটু বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে। এইটুক আমি ১০০% সিউর। সেটা বোলিং, ব্যাটিং ও মানসিক দিক থেকে। তবে আমরা এমন চ্যালেঞ্জ নিতে অভ্যস্ত এটাও আমি মনে করি। আমরা আশাবাদী আমরা সিরিজে ভালো পারফর্ম করব।’



র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান নয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের আটে। বাংলাদেশ ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতলে রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খুব কাছাকাছি থাকবে। তবে র‌্যাঙ্কিংয়ের থেকেও সাকিবের মূল লক্ষ্য নিজেদের কাজগুলো ঠিক মতো করা। নিজেদের কাজগুলো ঠিকমতো করলে প্রতিশোধ নেওয়া যাবে সহজেই।