04 Aug 2019   02:53:01 AM   Sunday   BdST

নিজ উদ্যোগে মশা নিধনের চেষ্টা এক আইনজীবীর!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: সারাদেশে যখন ডেঙ্গুর ভয়াবহতার রূপ নিয়েছে। তখন জেলা শহর থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত এলাকার মানুষ ডেঙ্গুর ভয়ে আতঙ্কে দিন পার করছে প্রতিনিয়ত।

পৌর কর্তৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঠাকুরগাঁও শহরে মশা নিধনে লোক দেখানো কার্যক্রম দু’একদিন লক্ষণীয় হয়েছে শুধু। এরপর জনসচেতনতার জন্য কোন মাইকিং বা প্রচার করা হচ্ছে না বলে সাধারণ মানুষ অভিযোগ করেছেন।

তাই নিজ উদ্যোগে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ঠাকুরগাঁও শহরের আইনজীবী মোস্তাক আলম টুলু মশা নিধনের জন্য বাড়ির আশে পাশে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা করছেন। তাছাড়া ড্রেনে কেরোসিন তেল, মশা নিধনের পাউডার প্রয়োগ করছেন শহরের বিভিন্ন স্থানে। মানুষকে ডেঙ্গু রোধে সচেতনতা জন্য সকলের বাড়ির আশপাশ পরিষ্কার রাখার আহবান জানাচ্ছেন।

মোস্তাক আলম টুলু জানান, দেশে প্রতিনিয়ত ডেঙ্গুর প্রকোপ বৃদ্ধি হচ্ছে। কয়েকদিন আগে ঠাকুরগাঁওয়ের ছেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত এক ছাত্র ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। এটি অত্যন্ত বেদনাদায়ক ঘটনা। আর কোনো প্রাণ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে যেন না ঝড়ে যায় সেজন্য সকলকে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। ফলে ডেঙ্গু রোগ নিরাময়ে সহায়তা বৃদ্ধি পারে।

তিনি আরো বলেন, আমি ড্রেনে মশা নিধনের জন্য যখন পাউডার প্রয়োগ করি, অনেকেই পাগল বলে ঠাট্টা করে। কিন্তু কারো কথায় কান না দিয়ে মশা নিধনের জন্য প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করলে যেকোনো রোগ বালাই মোকাবিলা করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক ড. কামরুজ্জামান সেলিমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অ্যাড. টুলুর মশা নিধনের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ জনসচেতনতার জন্য দৃষ্টান্ত। সকলে যদি আমরা ডেঙ্গু নিরাময়ে জন্য বাড়ির আশেপাশে পরিষ্কার রাখি তাহলে এ রোগ আক্রমণ হবে না মানুষ। ইতোমধ্যে ঠাকুরগাঁওয়ে ডেঙ্গু নিরাময়ে জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।