03 Jun 2019   04:23:55 PM   Monday   BdST

ঠাকুরগাঁওয়ে রাতের আধারে গম ঢুকাচ্ছে খাদ্য বিভাগ

রহিম শুভ ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার শিবগঞ্জ সরকারি খাদ্য গুদামে গোপনে রাতের আধারে গম ঢুকাচ্ছে একটি সিন্ডকেট চক্র। জেলা প্রশাসককে এ সংবাদ দেওয়ায় সাংবাদিকের উপর ক্ষিপ্ত হলেন সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন। 

 
শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে সদর উপজেলার শিবগঞ্জ খাদ্য গুদামে গোপনে গম ঢুকাচ্ছিল একটি সিন্ডিকেট চক্র। ওই গুদামের এমএলএসএস (পিয়ন) গোলাম মোস্তফার দায়িত্বে গুদাম খুলে গম ঢুকাচ্ছিল। দুটি ট্রাক্টরে করে এই গম আনা হয়। ওই সময় গুদামের দায়িত্ব থাকা ওসিএলএসডি গোলাম মোস্তফা অনুপস্থিত ছিলেন। 
 
 
এ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে যান সাংবাদিক আব্দুল লতিফ লিটু। ছবি তোলা চেষ্টার করলে বাঁধা দেয় গোডাউনের  পিয়ন গোলাম মোস্তফার। এ ওই সংবাদকর্মী তাৎক্ষণিক ভাবে (রাত ১২টায়) জেলা প্রশাসক ড.কেএম কামরুজ্জামান সেলিমকে বিষয়টি অবগত করেন। 
 
 
পর পরেই জেলা প্রশাসকের নির্দেশে রাত সাড়ে ১২টায় পুলিশসহ ঘটনাস্থলে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন । ওই সময় সংবাদকর্মী আব্দুল লতিফও উপস্থিত ছিলেন। 
 
 
 
এ ব্যাপারে সাংবাদিক আব্দুল লতিফ ইউএনও’র বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, জেলা প্রশাসকের কাছে ঘটনা প্রকাশ করায় ইউএনও আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। ঘটনা অনুসন্ধানে জেলা প্রশাসক ইউএনওকে দায়িত্ব দেন। তিনি অনুসন্ধান না করে সাংবাদিকের উপর ভর করছে। এ ঘটনা সাংবাদিকদের মধ্যে জানাজানি হলে রবিবার রাতে সাংবাদিক আব্দুল লতিফের কাছে ফোন করে ইউএনও তাঁর ব্যবহারে দু:খ প্রকাশ করেন।
 
 
এ ঘটনায় সত্যতা স্বীকার করলেও সংবাদ প্রকাশ করতে নিষেধ করে মোবাইলে ফোন দেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সিংহ । 
 
 
এ ব্যাপারে ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সাংবাদিকের উপর ক্ষিপ্ত হইনি। ওই রাতে সংগ্রহ অভিযানে গুদামে চাল ঢুকাচ্ছিল বলে সাফাই গাইলেন তিনি। 
 
 
জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বাবুল আকতার বলেন, জেলা প্রশাসকের কাছে আমি এ বিষয়টি অবগত হয়েছি। আমি ছুটি আছি এঘটনা ইউএনও, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ভাল বলতে পারবেন।
জেলা-উপজেলা বিভাগের অন্যান্য সংবাদ »