18 Feb 2018   12:54:14 AM   Sunday   BdST

জেলার সাংবাদিকতা তথ্য প্রযুক্তির প্রবাহে পিছিয়ে নেই

তথ্য প্রযুক্তির প্রবাহে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া অনেকেরই পছন্দের জায়াগা। সেক্ষেত্রে জেলা/মফস্বলে থাকারাও পিছিয়ে নেই। বিভিন্ন মিডিয়ার মধ্যে টেলিভিশনটাকেই পছন্দ বেশির ভাগের। এই মিডিয়াতে কাজ করতে আসারা প্রযুক্তিগত দক্ষতার অভাবে পড়েন নানা বিড়ম্বনায়। এতে দোষের কিছু নেই, এটাই স্বাভাবিক। তবে প্রযুক্তিগত বিষয়গুলো জানাটা অবশ্যই জরুরি।

 

জেলার একজন সংবাদ কর্মী একাধারে প্রতিবেদক, ভিডিওগ্রাফার, ভিডিওএডিটর, অর্থাৎ all in one.

 

টিভি মিডিয়াতে তথ্য এবং প্রযুক্তি কারও চেয়ে কোনটার গুরুত্ব কম নয়। তবে প্রযুক্তির দখলেই এই মিডিয়ার বেশিরভাগ কাজকর্ম। যেকারণে প্রযুক্তিগত কিছু বিষয়ে জানা না থাকলে ভোগান্তির শেষ থাকেনা। ভাল সাংবাদিক হয়েও এই মিডিয়াতে এসে পড়তে হয় বিপাকে, বারবার ব্যর্থ হতে হয়, চিন্তিত হতে হয় নিজের ক্যারিয়ার নিয়েও। আবার প্রতিনিয়ত আপডেট হতে থাকা প্রযুক্তির সঙ্গে পেরে ওঠা কঠিন অনেকের কাছে। মাঝেমধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠান সংবাদকর্মীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করলেও, তা কতটুকু কাজে আসে তা নিয়ে সন্দেহ রয়ে যায়।

 

রাজধানী ও বিভাগীয় শহরের গুরুত্ব থাকলেও, জেলার সাংবাদিকতা এখনও নানা কারণে উপেক্ষিত বলেই আমার ধারণা। অথচ সংবাদের একটি বড় অংশই জেলা/মফস্বল। আবার দর্শকদের বড় অংশও কিন্তু এখানে। এসব শহরে পেশাদার সাংবাদিক তৈরিতে তেমন উদ্যোগ চোখে পড়েনা। আমাদের দেশের বাস্তবতায়  মফস্বলে সাংবাদিকতা এখনও বেশ কঠিন। তবুও নানা সমস্যার মধ্যদিয়েই প্রিয় প্রতিষ্ঠানের মান রক্ষায় ২৪ ঘণ্টা কাজের জন্য প্রস্তুত থাকতে হয় এসব সংবাদকর্মীদের।

 

সংবাদের বিষয়, টিভি নিউজের ফরম্যাট, প্রয়োজনীয় তথ্য, ক্যামেরা অপারেটিং, ফ্রেম, লাইট, সাউন্ড, প্রাথমিক এডিটিং, ফুটেজের ফরম্যাট, রেজুলেশন ইত্যাদি বিষয় মফস্বলের সংবাদকর্মীকে সেভাবে ভাবায় না। তবে এটাই চরম সত্য যে, এসব বিষয়ে সুস্পষ্ট ধারণা না থাকার কারণে জেলার সংবাদ গুরুত্ব হারায় কেন্দ্রে এসে। নানা সীমাবদ্ধতায় যদিও এর সবকিছু পেরে ওঠা বেশ কঠিন, তবে অসম্ভব তো নয়। চলবে...। (পর্ব-১)

 

লেখক: নজরুল ইসলাম তমাল
ন্যাশনাল ডেক্স ইনর্চাজ
ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশন।