18 Apr 2019   07:21:06 PM   Thursday   BdST

কেনো ? প্রতিটা পুরুষ তার মাকে বাবার চেয়ে শতগুণ বেশি ভালোবাসে

রহিম শুভ : আমি তো আপনাকে চিন্তা করি আমার মায়ের মতো , বোনের মতো ! আমার মা বোনকে আমি সম্মান করি । তারা যথেষ্ট আধুনিক , রুচিশীল , সুশিক্ষিত , মেধাবী ।

 
তাঁরা সন্তান পালন করেন , সংসার আগলে রাখেন , অফিস করেন , পরিবার সচল রাখেন । 
পুরুষ মানুষ তো এসবের ধারে কাছেও যেতে পারবেনা । পুরুষের মধ্যে ঈশ্বর যেই হরমোন টেস্টোস্টেরন দিয়েছেন তার কাজই তিড়িং বিড়িং করা ! ধীর স্হির , গুণবতী , ধৈর্য্যশীলা , রুচিশীলা , মমতাময়ী সব গুণের বিশাল সাম্রাজ্য নারীদের দখলে ! অন্যদিকে - বান্দর , অস্থির , ঘাড়ত্যাড়া , ফালতু , লাফাঙ্গা - এসব মেক্সিমাম গুণ পুরুষ প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকে দখল করে রেখেছে । যে পুরুষ একটুও মেয়েলী গলায় কথা বলে - বাকী পুরুষেরা তাদের হিজড়া বলে , লেডিস বলে ! কেনো বলে ? 
প্রকৃতি , সমাজিক প্রথা - পুরুষ আর নারীর মধ্যে সুনির্দিষ্ট রূপরেখা এঁকে দিয়েছে ।
 
 
কিশোর বয়েসে এসে পুত্র সন্তান যদি সারাদিন রুমে বসে সাজুগুজু করে , বিছানা পরিস্কার করতে থাকে মা বাবা সাইকিয়াট্রিস্ট দেখান - কেনো দেখান ? কারণ পিতামাতার এক্সপেক্টেশন থাকে এই বয়েসে ছেলে একটু আগোছালো হবে , বেখেয়ালী থাকবে , তিড়িং বিড়িং করবে , ক্রিকেট খেলতে গিয়ে হাত ছিলবে , বন্ধুদের সাথে আড্ডাবাজি করবে । এই সত্য অস্বীকারের জো কারোর ই নেই । আছে ?
একদিকে প্রগতিশীলতা , আধুনিকতা , অন্যদিকে প্রগতিশীলতার লেবাসে সামাজিক অস্হিরতার অঙ্কুরোদ্গম করা - দুটো দুই মেরুতে ! গুলিয়ে ফেলবেন না । প্রতিঘাতটা এখানেই করবো আমরা , বারবার করবো , করতেই হবে - যদি সামাজিক স্হিতিশীলতা চাই , নারী পুরুষের পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ কে সমুন্নত রাখতে চাই ।
 
 
প্রতিটা পুরুষ তার মা কে বাবার চেয়ে শতগুণ বেশি ভালোবাসে , কেনো ? কিসের দায়ে , কিসের এতো মমতা !
 
 
সন্তান পিতার কাছ থেকে নেতৃত্ব শিখে , জীবনে চলার রশদ অর্জন শিখে , আর মা নামক নারী শিখায় মমতা , স্নেহ , ভালোবাসা । 
আপনি একাই পিতা হইতে চান , মাতৃত্বের মমতা চান , আবার সমকামিতা , পরকিয়া , জরায়ুর স্বাধীনতাও দেখাতে চান - ক্যামনে কি ? মিললো না তো !!!
 
 
যারা গায়ে পড়ে নারীকে পুরুষের চেয়ে শ্রেষ্ঠ দাবী করতে আসেন , এবং অধিকার সমতায়নের নামে বিভিন্ন অসামাজিক বা প্রথা বিরোধী প্রস্তাবনা দাঁড় করিয়ে সামাজিক বন্ধন , বিশ্বাস কে নড়বড়ে করতে চাচ্ছেন - তা তো বোকা ! শুধু বোকাই নন - মারাত্মক স্বার্থপর !
 
 
প্রকৃতি ই নারীকে মহান করে দিয়েছে , দশমাস দশদিন গর্ভের মধ্যে পুরুষকে আগলে রাখছে কে ? 
 
 
পুরুষ তো নারীর সমকক্ষ কখনোই হতে পারবেনা । কোনোদিনই না ।
আপনি নিজের প্রতি আস্হাহীন বলেই উদ্ভট প্রস্তাব তুলছেন ! নিরানব্বই শতাংশ মহিয়সী রমনীর অবদানকে একাই বিতর্কিত করতে চাইছেন । সেই অধিকার তো এই সমাজ ব্যবস্হা আপনাকে আপাতত দেবেনা , প্রশ্নই আসেনা ।
 
 
এদেশের শতভাগ পিতা চিন্তাই করতে পারবেন না - তার কণ্যা জরায়ুর স্বাধীনতা কনসেপ্টে চলতে গিয়ে পাষন্ড পুরুষ কর্তৃক নির্যাতিত হোক । আপনি কলমের স্বাধীনতা আদায় করে নিতে পারবেন ঠিকই , পারবেন এই কনসেপ্ট নিয়ে চলা নারীর সম্ভ্রমের নিরাপত্তা দিতে ! পারবেন ? এ সমাজের কোন ভাই চাইবে তার একই মায়ের পেটের বোনের সমকামিতা মেনে নিতে ? 
 
 
আপনি নিজে unstable , পারভার্ট বলে তো আপনার বিষাক্ত কনসেপ্ট কলমের স্বাধীনতায় ছড়িয়ে দিতে পারেন না ! এটা অন্যায় ।
And it is unlawful to abet such crime . প্রতিবাদ করবোই । 
আপনি ডিভোর্সী তাই বলে আপনি তো বলতে পারেন না - ` দাম্পত্য জীবন জঘণ্য ! প্রতিটা নারীর উচিত একা থাকা ! ` হ্যাঁ এটা আপনার মানসিক দৈন্যতা !
 
 
এসব বাদ দেন ! 
আসেন নারীশিক্ষার কথা বলি ,
ধর্ষণের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলি , 
সুচিন্তিত নারী অধিকারের কথা বলি ,
সামাজিক শ্রদ্ধাবোধ কে শক্তিশালী করি । 
আমাদেরকে পাশে পাবেন , আমরাই বলবো - ` হ্যাঁ আপু ! তুমি গ্রেট ...... এগিয়ে চলো ! `
 
উল্টাপাল্টা কনসেপ্ট এ সমাজে ছড়িয়ে যদি আপনাদের দেশত্যাগী ঐ গুরু আপার মতো হইতে চান -
স্পষ্ট করেই আবার বলবো - ` ফালতু কোথাকার ! `