01 Apr 2019   05:31:40 PM   Monday   BdST

কলেজ ক্যাম্পাসে আওয়ামী লীগ নেতার গরুর খামার

গোপালপুর (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা: টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার হেমনগর ডিগ্রী কলেজ ক্যাম্পাসে এক আওয়ামী লীগ নেতা গরুর খামার করায় পড়ালেখা ও চলতি এইচএসসি পরীক্ষার সার্বিক পরিবেশ বিঘ্নিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এমন কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও অভিভাবক মহল।

 
জানা যায়, জমিদার হেমচন্দ্র চৌধুরীর পরীদালান নামে খ্যাত রাজবাড়ীর ৬.৩৩ একর জমিতে ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় হেমনগর ডিগ্রী কলেজ। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নুরুল ইসলাম অভিযোগ করেন, হেমনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং ইউপি মেম্বার মাহবুব হাসান টুটুল প্রভাবশালী মহলের যোগসাজশে কলেজ ক্যাম্পাসে একটি গরুর খামার নির্মাণ করেছেন। খামার দেখভালের জন্য সেখানে অস্থায়ী ঘর, খড়ের গাদা ও অন্যান্য অস্থায়ী স্থাপনা ও নির্মাণ করা হয়েছে।

 

তিনি আরো জানান, গায়ের জোরে করা এই খামারটিতে যাতায়াতের জন্য রাজবাড়ীর দৃষ্টিনন্দন প্রাচীর জোর করে ভেঙ্গে একটি গেট বানানো হয়েছে। খামার এলাকায় অবৈধভাবে কাটাতারের বেড়া দিয়ে মাদক সেবীদের জন্য করা হয়েছে নিরাপদ ঘাঁটি। এখানে অহরহ ঘটছে ছিনতাইয়ের ঘটনা।

 

এ দিকে খামার করার পর থেকে বিরল প্রজাতির গাছপালা পাচার হওয়ায় রাজবাড়ীর সৌন্দর্যহানি ঘটছে। খামারের গবাদিপশু রাজবাড়ী দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। এতে কলেজ ক্যাম্পাসসহ রাজবাড়ীর পরিবেশ নোংরা হচ্ছে। পর্যটকরা বেড়াতে এসে বিড়ম্বনায় পড়ছেন। ক্যাম্পাসের এমন অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে আজ সোমবার থেকে এ কলেজ কেন্দ্রে শুরু হয়েছে এইচএসসি পরীক্ষা। পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এ পরিবেশ দেখে অস্বস্তি ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

 

কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য এবং হেমনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রওশন খান আইয়ুব অভিযোগ করেন, টুটুল মেম্বার কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বীরেন চন্দ্র গোপ রাজবাড়ীর ভেতরের পুকুর বেআইনিভাবে লীজ নেন। এখন বেআইনি লীজের ছুতোয় সেখানে গরুর খামার বানিয়ে শিক্ষার পরিবেশে বিঘ্ন ঘটাচ্ছেন। তিনি এর প্রতিকার দাবি করেন।

 

কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ইউনুস ইসলাম তালুকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, উপজেলা প্রশাসনকে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিকাশ বিশ্বাস অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে জানান, মাহবুব হাসান টুটুলকে নোটিশ করে অফিসে ডেকে অবৈধ গরুর খামার এক মাসের মধ্যে সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি প্রশাসনের নির্দেশ মানেন নি। দ্রুত তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এ বিষয়ে মাহবুব হাসান টুটুল জানান, কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দিলে তিনি গরুর খামার সরিয়ে নেবেন। তবে একটি মহল ষড়যন্ত্র করে পুকুরের বৈধ লীজ বাতিল করার জন্য এসব মিথ্যা অভিযোগ দাঁড় করিয়েছেন।