30 Mar 2019   03:53:45 PM   Saturday   BdST

একবছর ধরে নিজের মেয়েকে ধর্ষণ!

নরসিংদী: নরসিংদীর মনোহরদীতে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ভ্যানচালককে (৩৭) আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। জানা গেছে, নিজের মেয়েকে গত একবছর ধরেই ধর্ষণ করে আসছেন তিনি। মেয়ের মা এ ঘটনা জানলেও লোকলজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু বলেননি।

 

বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) বিকেলে উপজেলার একদুয়ারিয়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে আটক করা হয়। পরে রাতেই কিশোরীর মা বাদী হয়ে মনোহরদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীর মা জানান, ১৭ বছর আগে ওই ভ্যানচালকের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। ওই সময় তারা গাজীপুরের কালিগঞ্জ উপজেলার দেওপাড়া গ্রামে বাবার বাড়িতে থাকতেন। তাদের দুই সন্তানের মধ্যে বড় মেয়ের বয়স ১৫ বছর এবং ছেলের বয়স ১০ বছর।

 

তিনি জানান, বছরখানেক আগে বাড়িতে কেউ না থাকা অবস্থায় মেয়েকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেন তার বাবা। মেয়েটি ভয়ে কাউকে কিছু জানায়নি। পরে তাকে আরও একাধিকবার ধর্ষণ করা হলে মেয়েটি তাকে এ কথা জানিয়ে দেয়। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে তিনি কাউকে কিছু বলতে পারেননি। এ সুযোগে পাষণ্ড পিতা বেপরোয়া হয়ে উঠলে গ্রামবাসী তার এই বর্বরোচিত কর্মকাণ্ডের কথা জেনে যায় এবং তাদের এলাকা থেকে বের করে দেয়।

 

মাস তিনেক আগে ওই ভ্যানচালক পরিবার নিয়ে মনোহরদী উপজেলার একদুয়ারিয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে বসবাস করতে থাকেন। সেখানকার একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে মেয়েকে অষ্টম শ্রেণিতে ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ছেলেকে চতুর্থ শ্রেণিতে ভর্তি করান।

 

বৃহস্পতিবার বিকেলে মেয়েকে বাড়িতে একা পেয়ে ফের ধর্ষণ করেন ওই ভ্যানচালক। পরে সন্ধ্যায় মেয়েটির মা বাড়ি এলে তাকে এ কথা জানায় মেয়েটি। প্রতিবেশী কয়েকজনকে তিনি এ কথা জানালে তারা অন্যদের জানিয়ে সবাই মিলে ওই ভ্যানচালককে আটকে রেখে মনোহরদী থানায় খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে আটক করে নিয়ে যায়। পরে কিশোরীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান জানান, মেয়েটিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আর ধর্ষক ভ্যানচালককে আদালতে পাঠানো হয়েছে।